শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ০৩:০৪ পূর্বাহ্ন

সুন্দরগঞ্জে সড়ক দখল করে চলচ্ছে ধান ও খড়ের ঘটছে দূর্ঘটনা

নিজম্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৬ মে, ২০২২

সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার কাচা-পাকা সড়কগুলো এখন বোরো ধান ও খড়ের দখলে। বোরো ধান মাড়াই ও খড় শুকানোর কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে ব্যস্ততম সড়কগুলো। যার কারনে প্রতিদিন ঘটছে অনাকাঙ্খিত সড়ক দূর্ঘটনা।

গত দুই সপ্তাহের ব্যবধানে সড়ক দুর্ঘটনায় একজনের মৃত্যু এবং কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। পাশাপাশি সড়কে যানবাহন, স্কুল কলেজগামি শিক্ষার্থী ও পথচারিরা নিদারুন কষ্টের মধ্যে দিয়ে চলাফেরা করছে।

উপজেলার গোটা সড়কে ধান ও খড় শুকানোর কাজে ব্যবহার করার কারনে চালকগণ ভাড়া বাড়িয়ে দিয়েছে। সে কারনে যানবাহন চালকের সাথে যাত্রী সাধারনের বাকবিতন্ডা লেগেই চলছে প্রতিদিন। গ্রাম গঞ্জের কৃষকরা অপরিকল্পিতভাবে বসতবাড়ি নিমার্ণ করার কারণে বাড়ির উঠান না রাখায় সড়ক দখল করে অন্যায়ভাবে ধান মাড়াই, ধান ও খড় শুকানোর কাজে ব্যবহার করছে।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেলে, চলতি মৌসুমে উপজেলার ১৫টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় ২৬ হাজার ৮২০ হেক্টর জমিতে বোরো চাষাবাদ হয়েছে। ফলন ভাল হয়েছে। ইতিমধ্যে পুরোদমে ধান কাটামাড়াই শুরু করেছে কৃষকরা। বিশেষ করে তিস্তার চরাঞ্চলে ফলন সবচেয়ে ভাল হয়েছে।

শান্তিরাম ইউনিয়নের কৃষক তারা মিয়া জানান, বাড়ির উঠান না থাকায় সড়ক ব্যবহার করে ধান মাড়াই , ধান ও পল (খড়) শুকানো হচ্ছে। এতে করে লোকজনের চলাফেরা একটু কষ্ট হচ্ছে। তা ছাড়া কোন উপায় নাই। অনেকের বাড়ির উঠান নাই । সে কারনে সড়কের মধ্যে ধান মাড়াই, ধান ও পল শুকাচ্ছে।

মোটর বাইক চালক জুয়েল রানা জানান, ধান ও খড়ের উপর দিয়ে বাইক চালানো অত্যন্ত বিপদজনক। ব্রেক করলেই ঘটছে দূর্ঘটনা। তাছাড়া দ্রুতগতিতে বাইক চালানো যাচ্ছে না। মোড় ঘোড়ানোর সময় স্লিপ করে পড়তে অনেক বাইক চালক।

থানা সুত্রে জানা গেছে, গত ৩ সপ্তাহের ব্যবধানে সুন্দরগঞ্জের সড়কে দূর্ঘটনায় একজনের মৃত্যু এবং কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছে। দূর্ঘটনার মুল কারণ সড়কে ধান ও খড় শুকানোর জন্য ব্যবহার করা। উপজেলা কৃষি অফিসার রাশিদুল কবির জানান, সড়ক দখল করে ধান মাড়াই, ধান ও খড় শুকানো অন্যায়। তারপরও তা কৃষকরা করছে। কৃষি অধিদপ্তরের মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাগণ এ ব্যাপারে কৃষকদের পরামর্শ প্রদান করে আসছে। কিন্তু মানছে না অনেকে। স্বপ্নের ফসল ঘরের তোলার জন্য ব্যস্তসময় পার করছে কৃষকরা।

উপজেলা নিবার্হী অফিসার মোহাম্মদ আল মারুফ জানান, বিষয়টি তার জানা রয়েছে। কৃষি অধিদপ্তরের সাথে পরামর্শক্রমে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

All Rights Reserved © 2022 Gaibandha Report

কারিগরি সহায়তায় : শাহরিয়ার হোসাইন